উদঘাটনের পথ

উদঘাটনের পথ এপিসোড-৩

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles review

উদঘাটনের পথ এপিসোড-৩

“উদঘাটনের পথ” হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর জন্মের আগে মক্কা এবং পুরো বিশ্বের অন্ধকারাচ্ছন্ন আয়ামেজাহেলিয়াতে যুগ ও মহানবী সাঃ এর জন্মপর পর, নবুয়ত পাওয়ার পর সেই সোনালী যুগের সত্য ঘঠনা গুলো এই ডকুমেন্টারি সিরিজে তুলে ধরা হয়েছে। Sami Saydan ও Hakan C. Yazici এর পরিচালায় সত্য ঘঠনার অবলম্বনে ডকুমেন্টারি সিরিজটি নির্মিত হয়েছে।

যে যুগে ইতিহাসে ‘প্রাক-ইসলামিক’ যুগ হিসাবে লিপিবদ্ধ করা হয়েছিল,বিশেষ করে মক্কায়। সেই সময় কালে নারীদের কোন মূল্য ছিল না,নারীদের কোন সম্মান দিত না এবং কন্যা শিশু জন্ম নিলে জীবন্ত কবর দিত। মানুষ ফেতনা ফাসাদ তৈরি করা ছাড়া আর কিছুই জানত না।

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

মুর্তি পূজা করার পাশাপাশি আরও বিভিন্ন কুফরি কাজে লিপ্ত থাকতো। ঐ সময় বাজারে ক্রীতদাস প্রথা বেশ জনপ্রিয় ছিল। মদ ও জোয়া ছিল ঐসময় প্রতিদিনের কর্মকান্ড। অর্থের পরিবর্তে নিজের স্ত্রীকে জোয়ায় ধরতো। এমন একটি যুগ ছিল যেখানে শক্তিশালী লোকেরা একত্রিত ছিল এবং দূর্বলরা ছিল একে বারে একা। তখন কাবা ঘরের ভিতরে ও বাইরে ৩৬০ টি মূর্তি দ্বারা পরিবেষ্টিত ছিল।

তারা আললাহর একাত্মবাদ এবং আল্লাহর ইবাদত করা ভুলে গিয়ে ছিল। আর এই পাপাচার, নির্মমতা এবং কুফরি শুরু হয়েছিল নবী ও রসূলদের আগমনের ধারাবাহিতা থেমে যাওয়ার পর। এমন এক সময় যখন মানুষ অপেক্ষা করছিল, তারা যা ছিল তা থেকে বেরিয়ে আসার। মক্কা ও আল্লাহর ঘর পবিত্র কাবা মানবতার সাথে যে যুদ্ধ করছিল তার পরে তাদের উপর যে নিরবতা নেমে এসেছিল, আর এই নিরবতা কিছু আসার আগমনের একটি নির্দেশনা দিয়েছিল।

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

নিস্তব্ধ মক্কার ও পুরো বিশ্বরে আশার আলো জ্বলেছিল ৫৭০ খ্রিস্টাব্দে আরবি মসের ১২ রবিউল আউয়াল মাসে। একটি তারা “নবী সাঃ এর জন্মের ঘোষনা আসে। আত্মা যে আকাঙ্খায় পোড়াচ্ছিল তা এসেছিল।মহানবী সাঃ এর আগমনে বিশ্বকে সম্মানিত করেছে। কাবা ও মক্কার সবাই আনন্দে মেতে উঠেছিল। আশার মেঘ মক্কা থেকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে ছিল।

তার বাবার নাম ছিল আব্দুলাহ আর মায়ের নাম ছিল আমিনা। মহানবী সাঃ এর জন্মের আগেই তার বাবা মারা যাওয়াই তার ভরণপোষনের দায়িত্বে নিয়ে ছিলেন।

মহানবী সাঃ এর মাও তার ছয় বছর বয়সে মারা যায়। তারপর তার দাদাকেও হারান। যাকে তিনি সবচেয়ে বেশি ভালো বাসতেন।একেবারে এতিম হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। তারপর তার চাচা আবুতালিবের সাথে একা থাকতেন।
হযরত মুহাম্মদ সাঃ তিহি যেখানেই গেছেন তার সাথে প্রাচুর্য, জীবিকা এবং আশীর্বাদ নিয়ে এসেছেন।

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

পৃথিবীর ভার এবং তার ভার নিজপর হৃদয়ে বহন করছেন। তিনি এখন সবার ঠোঁটে ও হৃদয়ে। সবার মুখে শুধু একটা কথা ছিল,”এমন শিশু আগে কখনো দেখেনি। আর তিনি যে অবস্তার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিলেন তা দিন দিন বেড়েই চলছিল। একরে পর এক ভবিষ্যদ্বাণীর লক্ষন দেখা দিতে থাকে। কিছু লোক ছিল তারা জানত যে তিনি একজন নবী হবেন। তার শৈশব ও যৌবনের বছর গুলো এই ভাবেই কেটে গিয়েছিল।

নবী মুহাম্মদ সাঃ এর নাম হয়ে গেলো।মক্কার রাস্তায়, গ্রামে এবখ বাণিজ্য কাফেলায়। তিনি মক্কার সবচেয়ে সহপরিচিত ও সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তি হয়ে উঠেন। বণিকরা তাদের ব্যবসার ভার তার হাতে তুলে দিত। লোকেরা তাদের আমানত রাখতো ও গোপনীয়তার কথাও বলতো।

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

ঐ সময় কালে তার ডাক নাম ছিল মুহাম্মদ আল-আমিন [বিশ্বস্ত ]। ২৫ বছর বয়সে হযরত খাদিজা রাঃ কে তিনি বিয়ে করেন। মক্কার অন্ধকার দিন গুলোতে তিনি ছিলেন এক আলোকিত প্রদাীপের মতো, যা অন্ধাকার ও অজ্ঞতার অন্ধকার দূর করেছিল।

মক্কায় যে অন্ধকার সংঘটিত হচ্ছিল তা তার হৃদয় সহ্য করতে পারেনি, আর তখন তিনি হতাশ বোধ করতেন। মক্কার রাস্তায়, কাবার ভিতরে জ বাইরে এবং সব বাড়িতে যখন অজ্ঞতা ছড়িয়ে পড়ছিল সর্বত্র, তখন তিনি একা ছিলেন। সময়ের সাথে সাথে তিনি নিজেকে আরও একা মনে করতে লাগলেন।

ফলে তিনি নির্জনতা পছন্দ করতে শুরু করেন। তার মনের ব্যথা পশম করার জন্য তিনি জাবাল পাহারের একটি গুহা যাকে হেরা গুহা বলা হতো সেখানে আশ্রয় নিতেন। তার জন্য হেরা গুহা ছিল এই সমস্ত অনিষ্ট থেকে সর্বশক্তিমান আল্লাহর আশ্রয়স্থল।

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

ইসা আঃ এর ৬১০ বছর পরের কথা। দিনটি ছিল রমজান মাসের ২১ তারিখ। মক্কার সেই পাহাড়ে, সেই পাহাড়ের এক গুহায়, আর সেই গুহার এক কোণে হযরত মুহাম্মদ সাঃ তর প্রভুর সাথে একা, তখন এক ফেরেস্তা [হযরত জিব্রাইল আঃ] এসেছিল। তখন হেরা গুহা আলোয় ভরে গিয়ে ছিল। তখন তার উপর পবিত্র কোরআনে প্রথম ৫টি আয়াত নাজিল হয়েছিল।

যা ছিল ইসলামের প্রথম আদেশ। মহিমান্বিত প্রভুর কাছ থেকে প্রথম আলোকিক ঘটনার পর তিনজ তার বাড়িতে চলে আসেন। অনেক দিন পর হযরত মুহাম্মদ সাঃ এর উপর সূরা আল মুদ্দাসসির এর ৫টি আয়াত নাজিল হয়েছিল। ঐ আয়ত গুলোতে মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহর শ্রেষ্টত্ব ঘোষণার নির্দেশ দেন। পবিত্রতা অর্জন ও শির্ক পরিহার করার নির্দেশ দেন।

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

আবার কোরআনের আয়াত নাজিলের মাধ্যমে নামাজের নির্দেশ দেন। নামাজের জন্য পবিত্রতা প্রয়োজন আর পবিত্রতা অর্জনের জন্য হযরত জিব্রাইল আঃ নবী সাঃ কে অজু শিখিশে দিয়ে ছিলেন। আল্লাহর একাত্মবাদের দাওয়াত হযরত খাদিজা রাঃ গ্রহন করেন, তারপর হযরত আবু বকর রাঃ গ্রহণ করেন। হযরত মুহাম্মদ সাঃ হযরত খাদিজা রাঃ ও হযরত আবু বকর রাঃ কে অযু ও নামাজ পড়তে শিখিয়েছিলেন।

তারপর ঐ সময়কালের মক্কার সব চেয়ে বড় ধনীদের মধ্যে একজন হযরত উসমান রাঃ ও ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন। হযরত আবু বকর রাঃ ইসলাম গ্রহণ করার পরপরই ইসলামে দাওয়াত দিতে লাগল। এমন কিছু লোক ছিল যারা কোন প্রশ্ন ছাড়ই সাথে ইমান এনেছিলেন। হযরত উসমান রাঃ, হযরত তালহা রাঃ, হযরত সাদ রাঃ ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন। এভাবে ধীরে ধীরে তারা শক্তিশালী হয়েছিল। MORE

The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles

মক্কা বিভক্ত হয়ে গিয়েছিল। একদিকে যারা ওহীর পদাঙ্ক অনুসরন করেছিলেন, অন্য দিকে যারা তাদের পূর্বসূরিদের পদাঙ্ক অনুসরণ করেছিল। এক দিকে নতুন ধর্ম ইসলাম মেনে চলা শুরু করেছিল, অন্য দিকে এক দল অজ্ঞতাকে আঁকড়ে ধরে রেখেছিল। তখন কুরাইশরা বোঝার চেষ্টা করছিল কি হচ্ছে, আর হযরত মুহাম্মদ সাঃ ও তাঁর বন্ধুরা ওহী ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল। মক্কার ইতিহাসে এটি একটি নজিরবিহীন সংঘর্ষ ছিল। গোপনে ইসলামের দাওয়া দেওয়া ইবাদত করা ধীরে ধীরে প্রকাশ্যে শুরু হয়ে গিয়েছিল তখন।

এরপর সূরা আস সুরাহ নাজিলের মাধ্যমে মহান আল্লাহ মহানবী সাঃ এর নিকটাত্মীয়দের সর্তক করতে নির্দেশ দিয়েছিল। মহানবী সাঃ নিকটাত্মীয়দের ইসলামের দাওয়াত দিতে তার বাড়িতে সন্ধার ভোজের আয়োজন করেন।
তিনি আব্দুল আল মুতালিবের বংধরের সাবইকে দাওয়াত দেন। তিনি জানতেন তারা এই বিষয়ে আপত্তি করে।
রাতে সবাই এসেছিল এবং খাবার খেতে বসেছিল। The Revelation Path Episode 3 Bangla Subtitles


যখন মাহানবী সাঃ দাওয়াতে উদ্দেশ্যে কথা বলবে তখন আবু লাহাব রেগে বলে ওঠল মুহাম্মদ সাঃ নাকি যদুকর। মাহানবী সাঃ বাপদাদার ধর্ম বাদ দিয়ে নতুন ধর্ম প্রচার করাই বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে রেগে চলে গিয়ে ছিল। তার সাথে বাকি সবাইও চলে গিয়ে ছিল। মাহানবী সাঃ এর নিকটাত্মীয় কেউ তার কথা শুননি। কিন্তু মাহানবী সাঃ ও তার সঙ্গীরা কে থেমে থাকেনি। মহান আল্লাহর একাত্মবাদ ঘোষনা করে ইসলামের দাওয়াতে কাজ প্রকাশ্যে চালিয়ে যেতে শুরু করে। MORE

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button